রীনা আন্টির টিপস

আসুন নতুন খাবার বানাই, কিছু করে দেখাই

“হুঁকো মুখো হ্যাংলা, বাড়ি তার বাংলা, মুখে তার কথা নেই দেখেছো?”
সত্যিই, বাঙালির মতো খাদ্যরসিক সমঝদার গোটা বিশ্বে মেলা ভার। ধোসা হোক বা ইডলি, খেতে লাগে লাভলি, তাহলেই হলও- বাঙালি এই পন্থাতেই বিশ্বাসী। সুতরাং বাঙালি সব ধরনের খাবার খেতে ও খাওয়াতে সমান পারদর্শী। একথা মানতে দ্বিধা নেই যে, বাঙালি অপরকে খাইয়ে যেমন তৃপ্তি অনুভব করে, তেমনই হ্যাংলা নামে তকমা পেতেও তার কোনও লজ্জা নেই। তাই কিছু অনন্যসাধারন রেসিপির সন্ধানে চিরুনি তল্লাশী শুরু করে দিল হ্যাংলা হেঁশেল। cooking tips অনলাইন-এ পেতে আমাদের কোনও জুরি নেই।

সুতরাং cooking tips and tricks অনলাইন-এ পড়তে থাকুন। এরপর শুধু পড়ুন আর ট্রাই করুন। তারপর সার্ভ করুন। সংসার যেমন সুখী হয় রমনীর গুনে তেমনি রান্নাঘর পূর্ন হয় ভাল রাঁধুনির নৈপুন্যে।

আপনাদের সকলের নিশ্চয় সকলের ‘গল্প হলেও সত্যি’র সেই বিস্ময়কর চরিত্র ধনঞ্জয়ের কথা মনে আছে। আর তার কথা মনে থাকলে কই পয়দি বা পাঁঠা চচ্চড়ির কথা নিশ্চয়ই মনে আছে। এই রকম ইন্টারেস্টিং কিছু খাবারের হদিশ পাবার জন্যে আপনাকে সর্বদা চোখ রাখতেই হবে হ্যাংলার পাতায়। আমাদের পাতায় পাতায় লুকিয়ে রয়েছে রকমারি এবং সুস্বাদু খাবারের গন্ধ। তাই তো বলি, হ্যাংলা হোন এবং অপরকে হ্যাংলা হতে সাহায্য করুন। cooking tips online হ্যংলা-তে পড়ুন এবং অপরকে পড়ার সু্যোগ করে দিন।

হ্যাংলা আপনার জন্য ২৪ ঘন্টাই আছে এবং আপনাকে দারুন সমস্ত সুস্বাদু খাবারের সন্ধান দিতে থাকবে। এরকম কোনও খাবারের সন্ধান যদি আপনার ঝুলিতে থাকে তাহলে তাও আপনি শেয়ার করতে পারেন আমাদের সঙ্গে। সঙ্গে অনেক কথা, অনেক আড্ডা, অনেক অনেক গল্প, অনেক আনন্দ।

কোন রান্নায় কী ফোড়ন? কোন রান্নায় কোন মশলা? এই সবেরই উত্তর পেয়ে যাবেন একটি বই-এর ভেতর। তাহলে আর দেরি কিসের? রবিবারের ছুটির দিন হোক বা সোমবারের কর্মব্যস্ত সকাল। আপনার রান্নাঘরে সর্বদাই থাকবে উৎসবের মরসুম। আর সেই উৎসবের আলোতে ঝকঝকে আর প্রাণচ্ছ্বল থাকবে আপনার পরিবার। হ্যাঁ। খেয়ে ফিট, খাইয়ে হিট। আর সেই হিট রেসিপিগুলোকে আপনাদের জন্য শেয়ার করতে হ্যাংলা বদ্ধপরিকর। এসব জানার পর নিশ্চয়ই জিভে জল এসে জ্বালাতন শুরু করে দিয়েছে? তাই, আর অযথা দেরি না করে একটা রেসিপি ট্রাই করে ফেলুন। স্বাদের আনন্দ নিতে আমাদের নিমন্ত্রণ জানাতে ভুলবেন না যেন।

How to keep raisins fresh

  গত রোববার মেজমামি ফোন করে বললেন, ‘রিনা পায়েস রাঁধব বলে কৌটো থেকে কিশমিশ বের করে দেখি সবগুলোতে  পোকা লেগে গেছে। তোর মামা শুনে তো আমাকে একচোট ধমক লাগালেন। কী অবস্থা ভাব!’ বললাম, ‘মামি এখন থেকে কিশমিশে গুঁড়ো ময়দা মাখিয়ে রেখো, কিশমিশে পোকা লাগবে না দেখো।’

How to make yummy, soft liver preparation

  পুরনো বান্ধবী সুস্মিতার মেয়ের বিয়েতে আমাদের সাংবাদিক বন্ধু মৌমিতার সঙ্গে দেখা। দেখা হওয়া মাত্রই টিপস চাইল মেটে চচ্চরি বানাবে, মেটে নরম করবে কীভাবে? আমিও বলে দিলাম, ‘শোন, ঠান্ডা দুধে আধঘণ্টা মেটে ভিজিয়ে রান্না করিস। দেখবি নরম তুলতুলে হয়ে যাবে মেটে।’ শুনে মেয়ের মুখে আর হাসি ধরে না।

How to clean pressure cooker

  সেদিন আমার নেমতন্ন ছিল স্কুলের বান্ধবী জয়তীর বাড়ি। রান্নাঘরে প্রেশার কুকারের অবস্থা দেখে গা ঘিনঘিন করে উঠল। বলেই ফেললাম, ‘প্রেশার কুকারে দু’কাপ জল ঢেলে তাতে লেবুর খোসা দিয়ে ঢাকনা বন্ধ করে ২টো হুইসল বাজার পর গ্যাস থেকে নামিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে নিলেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।’

How to open tight lid easily

  সেদিন আমি আর পৌলমী হঠাৎ হাজির হলাম মৌমিতার বাড়ি। আমাদের কুলের আচার খাওয়াবে বলে কিছুতেই শিশির ঢাকনা খুলতে পারল না। ওর বরের যা শক্তি, তারই কাজ এটা। তখন বললাম, ‘হ্যাঁ রে, একটা মোটা রবার ব্যান্ড ঢাকনার চারপাশে আটকে এবার ঢাকনা ঘোরাতে থাক, দ্যাখ আপসেই খুলে আসবে ঢাকনা।’

How to keep ice cream solid…

  সেদিন ডিনারে ডেকেছিল প্রতিমাদি। শেষপাতে আইসক্রিম খেতে গিয়ে দেখি, সব কেমন গলে গেছে। যদিও ডিপ ফ্রিজেই ছিল। না বলে আর পারলাম না। বলেই ফেললাম, ‘প্রতিমাদি এবার থেকে প্লাস্টিকের ফ্রিজার ব্যাগে ভরে ডিপ ফ্রিজে রেখো। তোমার আইসক্রিম গলে যাবে না আর।’

How to remove black stain from hand

  আমার বোনঝি বিদিতা। প্রচন্ড ন্যাকা আর সৌন্দর্য সচেতন। সাতসকালে ফোন– মাসিমণি কাঁচকলা কেটেছি, আঙুল থেকে দাগ উঠছে না, কী করব? বললাম, ‘শোন অত ন্যাকামি করিস না। টকদই হাতে ঘষে হাত ধুয়ে ফেল, দাগ আর থাকবে না।’

How to keep coconut fresh

  অনেকদিন পর আমার ব্যাচেলর বন্ধু সঞ্জীবের ফোন। ওর ফ্রিজে অর্ধেকটা নারকেল ছিল। মালাইকারি বানাবে বলে নারকেল বের করে দেখে নারকেল শুকিয়ে কাঠ। আমি বাতলে দিলাম সমাধান, ‘শোন সঞ্জু, এখন থেকে এরকম আধমালা নারকেল ফ্রিজে রাখলে ভালভাবে নুন মাখিয়ে রাখবি। দেখবি নারকেল একদম ঠিকঠাক আছে।’

ডালের কৌটোয় পোকা ধরলে…

  আমার দেওর মৈনাক সেদিন কথায় কথায় জিজ্ঞেস করল, ‘বউদি ডালের কৌটোয় পোকা ধরে ডাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। কিছু চটজলদি টিপস পেলে ভাল হয়।’ বললাম, ‘বউকে বোলো দু’তিনটে শুকনো লঙ্কা ডালের কৌটোর ভেতর রাখলে আর পোকা লাগার সম্ভাবনা থাকবে না।’ যথারীতি শুনেই বলে, ‘গ্রেট, ফ্যান্টাস্টিক।’

সর্ষে বাটা যাতে তেতো না হয়…

  সেদিন সেজদার বাড়ি দুপুরে খেতে বসে দেখি সর্ষে পাবদার ঝালে তেতো স্বাদই বেশি পাওয়া যাচ্ছে। বউদিকে আড়ালে ডেকে বললাম, ‘এখন থেকে সর্ষে বাটার সময় কাঁচালঙ্কা আর নুন মিশিয়ে বাটবে। দেখবে সর্ষেবাটা আর তেতো হবে না।’